হোম / সারা দেশ / সাতলা কচা নদীর উপর নব নির্মিত বরিশাল টু টুংগীপাড়া সংযোগ সেতুটি শহীদ ঈসমাইল হোসেন হাওলাদারের নামে নামকরণ করা হোক
15878856_2194912351

সাতলা কচা নদীর উপর নব নির্মিত বরিশাল টু টুংগীপাড়া সংযোগ সেতুটি শহীদ ঈসমাইল হোসেন হাওলাদারের নামে নামকরণ করা হোক

সাতলা কচা নদীর উপর নব নির্মিত বরিশাল টু টুংগীপাড়া সংযোগ সেতুটি শহীদ ঈসমাইল হোসেন হাওলাদারের নামে নামকরণ করা হোক একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে সাতলা ইউনিয়নের অকুতভয় সৈনিক “বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ঈসমাইল হোসেন হাওলাদার” প্রতি সন্মান জানিয়ে সাতলা কচা নদীর উপর নব নির্মিত বরিশাল টু টুংগীপাড়া সংযোগ সেতুটি তার নামে নামকরণ করা হোক।

১৯৭১ সালে ২৫শে মার্চ রাতের অন্ধকারে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী পূর্ব পাকিস্তানের বাঙালীদের উপর ঝাপিয়ে পড়ে। শুরু হয় গণহত্যা। একে একে তারা সাধারন মানুষ, ছাত্র, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী ধরে ধরে নির্বিচারে হত্যা করে। পাকিস্তানি সামরিক বাহীনিকে প্রতিরোধ করতে অস্ত্র হাতে তুলে নেয়  বীর বাঙালীর দামাল সন্তানেরা। সূচনা হয় স্বাধীনতা যুদ্ধের। ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট, ইস্ট পাকিস্তান রাইফেলস (ইপিআর), ইস্ট পাকিস্তান পুলিশ, ছাত্র ও স্বাধীনতাকামী সাধারন মানুষদের নিয়ে গড়ে তোলা হয় মুক্তিবাহীনি। স্বাধীনতা ও মুক্তি যুদ্ধের সেই সংগ্রামে অসামান্য অবদান রাখেন ঐতিহাসিক সাঁতলা ইউনিয়নের সূর্য সন্তানেরাও।

সাতলা ইউনিয়নের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাঃ

১) শহীদ মোঃ ঈছমাইল হোসেন হাওলাদার, ২) মোঃ ফজলুল হক হাওলাদার, ৩) মোঃ সুলতান হোসেন হাওলাদার, ৪) মোঃ নুরুল হক বিশ্বাস, ৫) মোঃ আলতাফ হোসেন বিশ্বাস। ৬) আবদুল ছত্তার হাওলাদার, ৭) আবদুল মালেক হাওলাদার, ৮) মোঃ জাকির হোসেন হাওলাদার, ৯) মোঃ শুলতান শাহ, ১০) মোঃ মনছুর আলী, ১১) এ, কে, এম শামসুল আলম বালী। ১২) মোঃ নুরুজ্জাম হাওলাদার। ১৩) মোঃ লাল মিয়া হাওলাদার, ১৪) আবদুল রব হাওলাদার, ১৫) মোঃ মামহুদ হোসেন মিয়া, ১৬) মোঃ গোলাম ফারুক, ১৭) আবদুল লতিফ মোল্লা, ১৮) মোঃ সাহেব আলী বালী, ১৯) মোঃ বরকত আলী, ২০) মোঃ আলম শরীফ মিয়া, ২১) আবদুল মালেক, ২২) মোঃ মজিবর বিশ্বাস, ২৩) খোরশেদ বালী। ২৪) আরব আলী হাওলাদার, ২৫) রশময় সমদ্দার, ২৬) মোঃ ছোহরব হাওলাদার, ২৭) মোঃ আকতার মিয়া, ২৮) মোঃ কাদের বাহাদুর, ২৯) মোঃ সাহেব হাওলাদার, ৩০) মোঃ ফারাইন বিশ্বাস, ৩১) আলম শরীফ ভুইয়াসহ আরো নাম না জানা অনেকেই।

যারা প্রানপণ লড়াই করে একটি স্বাধীন বাংলাদেশ, সবুজের বুকে একটি লাল মানচিত্র উপহার দিয়েছে বাঙালী জাতিকে সেই সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি রইলো “সকালের নিউজ ২৪ ডটকম” ও “সাতলা ইয়ুথ পার্লামেন্টে” এর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতাবোধ ও বিনম্র শ্রদ্ধা।

১৯৭১ সালে ১৭ই এপ্রিল গঠিত হয় ১১টি সেক্টর। বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, ফরিদপুর এবং খুলনার কিছু এলাকা নিয়ে গঠিত হয় ৯ নং  সেক্টর। এই ৯ নং সেক্টরের কমান্ডারের দায়িত্ব দেয়া হয় সাহসী সৈনিক  মেজর আঃ জলিলকে। মেজর জলিলের নেত্রিত্বে পূর্ব পাকিস্তানের নিপীড়িত মানুষদের পরাধীনতার হাত থেকে মুক্ত করতে ঝাপিয়ে পড়েন সাতলার বীর সেনানীরা। অবশেষে দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী এক যুদ্ধের মধ্য দিয়ে মুক্ত হয় জাতি। স্বাধীন হয় দেশে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *